বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪

চার বছর আগে মারা যাওয়া বিএনপি নেতার কারাদণ্ড

চার বছর আগে মারা যাওয়া আবু তাহের দাইয়াকে নিউ মার্কেট থানার মামলায় দেড় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তিনি বলেন, এ মামলায় চার্জশিটভুক্ত ১৪ নেতাকর্মীর সবাইকে কারাদণ্ড দেন আদালত। তারা সবাই পলাতক রয়েছেন। তাদের মধ্য আবু তাহেরও রয়েছেন

by ঢাকাবার্তা ডেস্ক
চার বছর আগে মারা যাওয়া বিএনপি নেতার কারাদণ্ড

রাজনীতি ডেস্ক।।

পুলিশের ওপর হামলা ও দায়িত্ব পালনে বাধা দেওয়ার ঘটনায় রাজধানীর নিউ মার্কেট থানার মামলায় বিএনপির ১৪ নেতাকর্মীকে দেড় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এদের মধ্যে চার বছর আগে মারা যাওয়া নিউ মার্কেট থানার ১৮ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবু তাহের দাইয়াও রয়েছেন। সোমবার (২০ নভেম্বর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতাউল্লাহ আসামিদের অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) ওই মামলার আসামিপক্ষের এক আইনজীবী জাকির হোসেন জুয়েল বিষয়টি নিশ্চিত করেন। বলেন, চার বছর আগে মারা যাওয়া আবু তাহের দাইয়াকে নিউ মার্কেট থানার মামলায় দেড় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তিনি বলেন, এ মামলায় চার্জশিটভুক্ত ১৪ নেতাকর্মীর সবাইকে কারাদণ্ড দেন আদালত। তারা সবাই পলাতক রয়েছেন। তাদের মধ্য আবু তাহেরও রয়েছেন।

মারা যাওয়ার বিষয়টি আদালতকে জানানো হয়নি? এমন প্রশ্নে এ আইনজীবী বলেন, আমি এ মামলায় হাবিব উন নবী খান সোহেল ও জাহাঙ্গীর আলম পাটোয়ারীর পক্ষে মামলা দেখতাম। আবু তাহেরের পক্ষে আগে দেখতাম। উনি পলাতক হওয়ার পর আর তার পক্ষে মামলাটা দেখি না। মারা যাওয়ার বিষয়ে আদালতকে জানানোর বিষয়ে সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

এ বিষয়ে মৃত তাহেরের ছেলে এহসান বলেন, আমার বাবা রাজনীতি করতেন। রাজনীতি করতে গিয়ে মাথায় অনেক আগে আঘাত লাগে। আঘাত লাগার কারণে তার মাথায় একটি ক্ষতের মতো হয়েছিল। চার বছর আগে নিউ মার্কেট এলাকায় মাথা ঘুরে পড়ে যান। এতে তার মাথায় ক্ষতটি ফেটে গিয়ে রক্তক্ষরণ হয়ে মারা যান। মৃত বাবাকে আদালত সাজা দিয়েছেন, এটা শুনে খারাপ লাগলো। একজন মৃত ব্যক্তিকে কীভাবে আদালত সাজা দেন, আমার জানা নেই। এটা আমাদের মর্মাহত করেছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে বিএনপির হরতাল-অবরোধ চলাকালে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করার ঘটনায় নিউ মার্কেট থানায় মামলা হয়। এ মামলায় এজাহারনামীয় সাত নম্বর আসামি ছিলেন আবু তাহের। মামলার তদন্ত শেষে ওই বছরের ২১ জুলাই আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ। মামলার বিচার চলাকালে চার বছর আগে তিনি মারা যান। এ মামলার বিচার শেষে আবু তাহের, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, তথ্যবিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলালসহ ১৪ জনকে দেড় বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এর মধ্যে দণ্ডবিধি ১৪৩ ধারায় আসামিদের ছয় মাসের কারাদণ্ড ও দুই হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। অপরদিকে, দণ্ডবিধি ৩২৩ ধারায় এক বছরের কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন আদালত। এ অর্থদণ্ড অনাদায়ে তাদের আরও দুই মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আসামিরা পলাতক থাকায় আদালত তাদের বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানাসহ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

 

আরও পড়ুন: নৌকার প্রার্থী হতে ৩ আসনে মনোনয়ন জমা দিলেন সাকিব

You may also like

প্রকাশক : জিয়াউল হায়দার তুহিন

সম্পাদক : হামীম কেফায়েত

গ্রেটার ঢাকা পাবলিকেশন
নিউমার্কেট সিটি কমপ্লেক্স
৪৪/১, রহিম স্কয়ার, নিউমার্কেট, ঢাকা ১২০৫

যোগাযোগ : +8801712813999

ইমেইল : news@dhakabarta.net