শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪

তিশা বললেন ‘ফুড পয়জনিং’, ‘আত্মহত্যার চেষ্টা’ গুজব

তার এই বিবৃতিতে শুধু এটুকুই উঠে আসেনি, বরং অনেক ফ্যাক্টর প্রকাশ পেয়েছে নতুন করে। তিশার চলমান জীবনকে যা আরও জটিলতার দিকেই ঠেলে দিলো বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। 

by ঢাকাবার্তা ডেস্ক
তিশা বললেন ‘ফুড পয়জনিং’, 'আত্মহত্যার চেষ্টা' গুজব

বিনোদন ডেস্ক।।

হাসপাতালে ভর্তি হবার ঘটনা প্রকাশের প্রায় ১২ ঘণ্টা পর অবশেষে মিলেছে মন্তব্য। বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরেন জনপ্রিয় টিভি নায়িকা তানজিন তিশা। এরপর বিকাল সাড়ে ৫টা নাগাদ ‘আত্মহত্যা-চেষ্টা’র খবর প্রসঙ্গে বিস্তারিত বক্তব্য প্রকাশ করেন নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে। জানান, বিষয়টি ‘আত্মহত্যা-চেষ্টা’ ছিল না। এটি ছিল ‘ফুড পয়জনিং’! আবার ঘুমের বড়ি খাওয়ার বিষয়টিও তিনি এড়িয়ে যাননি।

তার এই বিবৃতিতে শুধু এটুকুই উঠে আসেনি, বরং অনেক ফ্যাক্টর প্রকাশ পেয়েছে নতুন করে। তিশার চলমান জীবনকে যা আরও জটিলতার দিকেই ঠেলে দিলো বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

ফেসবুকে তিশার  বিবৃতি। ঢাকাবার্তা।

ফেসবুকে তিশার বিবৃতি। ঢাকাবার্তা।

সকাল থেকে ঢাকার মিডিয়ায় ‘আত্মহত্যা-চেষ্টা’র খবর প্রকাশ প্রসঙ্গে তিশা বলেন, ‘আজকে কিছু ভুল নিউজ দেখতে পেলাম এবং সে বিষয়টি আমি সবাইকে পরিষ্কার করতে চাই। আসল বিষয়টি হলো, গতরাতে আমার ফুড পয়জনিংয়ের পরে কিছু ব্যাপারে আমার খারাপ অবস্থা ছিল। তাই আমি একটা স্লিপিং পিল খাই এবং তার সাইডইফেক্ট হিসেবে বমি হয় এবং হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নিই। আমি এখন সম্পূর্ণ সুস্থ।’

এদিকে আত্মহত্যা প্রসঙ্গে তিনি টেনে আনেন তার মৃত বাবাকেও। বোঝাতে চান, বাবা হারানোর পর তিনি মৃত্যুটাকে সমীহ করেই চলেন। ফলে আত্মহত্যা করার মতো ইচ্ছা বা সাহস তার নেই। তিশার ভাষায়, ‘আমার বাবা দুই বছর আগে মারা যায় এবং বিষয়টি আমাকে এতটাই শকড করেছে যে এই ধরনের পদক্ষেপ আমি কোনও মানুষের জন্যই জীবনে নেবো না।’

যদিও এটুকু পরিষ্কার করেননি তিশা, তার বাবা ‘আত্মহত্যা’ করেছেন কিনা!

একটি নাটকে ফারহান ও তিশা

তিশার বিবৃতিতে ‘আত্মহত্যা’র পাশাপাশি ব্যক্তিজীবন বা সহশিল্পীর সঙ্গে প্রেম নিয়ে ওঠা গুঞ্জনেরও জবাব দেন। তিশা সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘আর্টিস্টদের একটা ব্যক্তিগত জীবন আছে। সেই জীবন নিয়ে আপনারা যদি কথা বলেন তাতে আমার বিন্দুমাত্র আপত্তি নেই। কিন্তু আমি একটি বিষয় বলতে চাই, ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আমারও হয়তো কখনও কিছু বলার থাকতে পারে।’

মূলত এরপরই শুকনো খড়ের গাদায় ম্যাচের কাঠি ছোঁয়ান তিশা। বোঝাতে চান, তার বর্তমান অসুস্থতা, গণমাধ্যমের খবর আর প্রেম-বিচ্ছেদের গুঞ্জনের পেছনে রয়েছে তারই সহকর্মীরা! যাদের নিয়ে তিনি বিস্তারিত বলবেন দ্রুতই। তিশার ভাষায়, ‘মিডিয়ার কিছু মানুষ, যারা আমার ক্ষতি করার চেষ্টা করছে। তাদের প্রত্যেকের নাম উল্লেখ করে, স্পেশালি আমার ফিমেল-মেল কো-আর্টিস্ট, আমার ডিরেক্টর, আমার পার্সোনাল লাইফের মানুষ… যারা যারা আমার ক্ষতি করেছেন অথবা করার চেষ্টা করছেন তাদের প্রত্যেকের নাম ম্যানশন করে শিগগিরই সাংবাদিক ভাই-বোনদের সাথে বসে প্রেস কনফারেন্স করবো।’

তানজিন তিশা

না। তিশার বিবৃতি এখানেই শেষ হয়নি। সবাইকে চমকে দিয়ে লেখাটির নিচে স্পষ্ট অক্ষরে লিখে রেখেছেন Musfiq R. Farhan নামটি। যে সহশিল্পীকে ঘিরেই মূলত তিশার বর্তমান জীবনের নানান জটিলতার খবর প্রকাশ্যে আসছে ক্রমশ। জানা গেছে, দেড় বছর ধরে নাটকের এই জুটি ব্যক্তিগত জীবনেও প্রেমের সম্পর্কে মজে রয়েছেন। তাই নয়, ১৫ নভেম্বর রাতে তিশা হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে ফারহানের বাসাতেও গিয়েছিলেন। ধারণা করা হচ্ছিল, সেই রাতে দুজনার মতবিরোধ থেকেই হাসপাতাল পর্যন্ত গড়ালেন তিশা।

যদিও তিশা তার বক্তব্যে ফারহান সম্পর্কে টুঁ-শব্দটিও করেননি। তবু পোস্টের শেষে চলে এলো তারই নাম! বিষয়টি সম্পর্কে জানতে ও জানাতে তিশার সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করেও ব্যর্থ হয় ঢাকাবার্তা। তবে ধারণা করা হচ্ছে, তিশাকে এই পোস্টটি লিখে মেসেঞ্জারে পাঠিয়েছেন মুশফিক আর ফারহান। ইনবক্স থেকে কপি করে তিশা ওয়ালে পেস্ট করে পোস্ট করেছেন। খেয়াল করেননি ফারহানের নামটি। হতে পারে অন্য কোনও ঘটনাও।

তানজিন তিশা

বলা দরকার, ১৫ নভেম্বর দিবাগত রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হয়ে স্কয়ার হাসপাতালে অচেতন অবস্থায় ভর্তি হন তানজিন তিশা। সূত্র বলছে, এটা ছিল ফারহানের সঙ্গে অভিমান করে তিশার আত্মহত্যা-চেষ্টা।

 

আরও পড়ুন: ইনস্টাগ্রামে ৫ মিলিয়ন কৃতজ্ঞতা জানালেন তিশা

You may also like

প্রকাশক : জিয়াউল হায়দার তুহিন

সম্পাদক : হামীম কেফায়েত

গ্রেটার ঢাকা পাবলিকেশন
নিউমার্কেট সিটি কমপ্লেক্স
৪৪/১, রহিম স্কয়ার, নিউমার্কেট, ঢাকা ১২০৫

যোগাযোগ : +8801712813999

ইমেইল : news@dhakabarta.net