শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০২৪

পাঠকের চেয়ে লেখক বেশি: রুবিনা সুলতানা

"প্রতি বারের মতো এবার ও বেশ মনোরম পরিবেশে বই মেলার আয়োজন করা হয়েছে। অসংখ্য ভাইরাল ব্যক্তিদের বই প্রকাশ পেয়েছে। এই ইস্যুতে বইমেলাও ভাইরাল হয়েছে।"

by ঢাকাবার্তা ডেস্ক
পাঠকের চেয়ে লেখক বেশি: রুবিনা সুলতানা

ঘরের সকল কাজ সামলে  সাহিত্য চর্চায়ও মন দেয় ও বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করে। বলছি গৃহিণিদের কথা। বাংলা সাহিত্যের অনেকটা জুড়েই নারী কবিদের অবদান অনস্বীকার্য। এমনই একজন নারী কবি হলেন রুবিনা সুলতানা। তিনি ঢাকার খিলগাঁও থাকেন। পূর্বে তার তিনটি কাব্যগ্রন্থ বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে। ২০২৪ একুশে বইমেলায় তার চতুর্থ কাব্যগ্রন্থ “তুমি এলে না ফিরে” প্রিয় বাংলা প্রকাশন  থেকে বেরিয়েছে। রুবিনা সুলতানার সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছেন ঢাকাবার্তার চিফ অব ডিজিটাল মোত্তাকিন মুন।   

বার বই মেলায় আমার চতুর্থ কাব্যগন্থ  ''তুমি এলে না ফিরে'' পাওয়া যাচ্ছে। আমার আরো তিনটি বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছিল।  সেগুলো যথাক্রমে "তুমি আছো" কাব্যগ্রন্থ  "মায়াবী চাঁদ" কাব্যগ্রন্থ ও "মেঘের দেশে" কাব্যগ্রন্থ । পাঠকরা বইগুলো রকমারি ডটকম থেকে সংগ্রহ করতে পারবে।  আমার সবগুলো বই "প্রিয় বাংলা প্রকাশন" থেকে প্রকাশিত হয়েছে।  

বার বই মেলায় আমার চতুর্থ কাব্যগন্থ  ”তুমি এলে না ফিরে” পাওয়া যাচ্ছে। আমার আরো তিনটি বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছিল।  সেগুলো যথাক্রমে “তুমি আছো” কাব্যগ্রন্থ  “মায়াবী চাঁদ” কাব্যগ্রন্থ ও “মেঘের দেশে” কাব্যগ্রন্থ । পাঠকরা বইগুলো রকমারি ডটকম থেকে সংগ্রহ করতে পারবে।  আমার সবগুলো বই “প্রিয় বাংলা প্রকাশন” থেকে প্রকাশিত হয়েছে।  

মোত্তাকিন মুন: আপনি কতদিন যাবত লেখালেখি করছেন?

রুবিনা সুলতানা: কিশোরী বয়স থেকে। আমার লেখালেখির উৎসাহ পেয়েছি আমার ভাইয়ের কাছ থেকে।  নতুন বছর উপলক্ষে আমাদের বাড়িতে দেওয়াল পত্রিকা বের হত। সেখানেই লেখার প্রথম হাতে খড়ি।

মোত্তাকিন মুন:  বাংলা সাহিত্যের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আপনার মতামত জানতে চাই?

রুবিনা সুলতানা: বাংলা সাহিত্যের বর্তমান অবস্থা। ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি, পাঠকের চেয়ে লেখক বেশি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  ভাইরাল যিনি বা যারা তার হাতেই বাংলা সাহিত্যের বর্তমান ঝান্ডা।বাংলা সাহিত্যের মানদণ্ড এখন ভাইরাল ব্যক্তি যাচাই করে, সত্যিকারের লেখকের হাতে বাংলা সাহিত্যের বর্তমান অবস্থা খুবই নড়বড়ে।

মোত্তাকিন মুন: পত্রিকায় এবং অনলাইনে যারা লিখছেন তাদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন?

রুবিনা সুলতানা: পত্রিকা বা অন লাইনে যারা লিখছে, তাদের মধ্যে অনেকেই ভালো লিখেন। অনলাইন একটা বিশাল প্লাটফর্ম লেখালেখির জন্য। এখানে শুধু উৎসাহিত করা হয়। যারা লিখছেন, সবাই হয়তো একদিন ভালো করবে। এগিয়ে যাবে বাংলা সাহিত্য।

মোত্তাকিন মুন: অনলাইন এবং পত্রিকায় কার কার লেখা ভালো লাগে?

রুবিনা সুলতানা: অনেকের লেখাই ভালো লাগে। নাম না বলাই ভালো।

মোত্তাকিন মুন: দেশে কবিদের মূল্যায়ন নিয়ে কিছু বলুন?

রুবিনা সুলতানা: আমি মনে করি, প্রতিষ্ঠিত কবিগণ যথেষ্ট নাম, যশ, খ্যাতি পেয়েছেন, দেশে তাদের যথাযথ সম্মান করা হয়। এছাড়াও অনেক গুণী লেখক রয়েছেন যারা হয়তো কোনদিন স্বীকৃতি পাবে না। তারা থেকে যাবে সাধারণ মানুষের লোকচক্ষুর আড়ালে।

মোত্তাকিন মুন: আপনার তো এবার চতুর্থ কাব্যগ্রন্থ এসেছে। আপনার কোন কোন বই এর আগে প্রকাশ পেয়েছে? বইগুলো পাঠকরা কিভাবে সংগ্রহ করতে পারবে?

রুবিনা সুলতানা: এবার বই মেলায় আমার চতুর্থ কাব্যগন্থ  ”তুমি এলে না ফিরে” পাওয়া যাচ্ছে। আমার আরো তিনটি বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছিল।  সেগুলো যথাক্রমে “তুমি আছো” কাব্যগ্রন্থ  “মায়াবী চাঁদ” কাব্যগ্রন্থ ও “মেঘের দেশে” কাব্যগ্রন্থ । পাঠকরা বইগুলো রকমারি ডটকম থেকে সংগ্রহ করতে পারবে।  আমার সবগুলো বই “প্রিয় বাংলা প্রকাশন” থেকে প্রকাশিত হয়েছে।

রুবিনা সুলতানা: যদিও একটা কথার কলরব শুনা যায় যে, পাঠকের বই বিমুখতা। কিন্তু আমার কাছে মনে হয় পাঠকের হৃদয়ে কবিতার যথেষ্ট আবেগ রয়েছে, পাঠকরা কবিতার কদর করতে শিখেছে।
মোত্তাকিন মুন: এবারের বইমেলার আয়োজন নিয়ে কিছু বলুন?
মোত্তাকিন মুন: পাঠকের উদ্দেশ্যে এটাই বলবো- বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয়ে যায় না, সুতরাং সবাই বেশী বেশী বই কিনবেন আর পড়বে্ন।

You may also like

প্রকাশক : জিয়াউল হায়দার তুহিন

সম্পাদক : হামীম কেফায়েত

গ্রেটার ঢাকা পাবলিকেশন
নিউমার্কেট সিটি কমপ্লেক্স
৪৪/১, রহিম স্কয়ার, নিউমার্কেট, ঢাকা ১২০৫

যোগাযোগ : +8801712813999

ইমেইল : news@dhakabarta.net