মঙ্গলবার, জুন ২৫, ২০২৪

বিট কয়েনের দাম উঠেছে ৬০ হাজার ডলারে, কেন এই মূল্যবৃদ্ধি

গতকাল বিট কয়েনের দাম ৮ শতাংশ বেড়ে ৬১ হাজার ২৭২ ডলারে উঠে যায়; ২০২১ সালের নভেম্বর মাসের পর যা সর্বোচ্চ। তখন বিট কয়েনের দাম প্রায় ৭০ হাজার ডলার পর্যন্ত উঠেছিল

by ঢাকাবার্তা ডেস্ক
বিট কয়েনের দাম উঠেছে ৬০ হাজার ডলারে, কেন এই মূল্যবৃদ্ধি

বিদেশ  ডেস্ক।।

দুই বছরের মধ্যে বিট কয়েনের দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠেছে। গতকাল বুধবার এই ক্রিপ্টোকারেন্সির দাম ৬০ হাজার ডলারে উঠে গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্পট বিট কয়েন এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড পণ্যে বিনিয়োগ বৃদ্ধির জেরে বিট কয়েনের এই মূল্যবৃদ্ধি। কেবল চলতি মাসেই এখন পর্যন্ত এই ক্রিপ্টোকারেন্সির দাম ৪২ শতাংশ বেড়েছে। এর ফলে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসের পর চলতি ফেব্রুয়ারি মাসে বিট কয়েনের সর্বোচ্চ মূল্যবৃদ্ধি হতে যাচ্ছে বলে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে।

গতকাল বিট কয়েনের দাম ৮ শতাংশ বেড়ে ৬১ হাজার ২৭২ ডলারে উঠে যায়; ২০২১ সালের নভেম্বর মাসের পর যা সর্বোচ্চ। তখন বিট কয়েনের দাম প্রায় ৭০ হাজার ডলার পর্যন্ত উঠেছিল। সাপ্তাহিক হিসাবে ২১ ফেব্রুয়ারি–পরবর্তী সপ্তাহে বিট কয়েনের সর্বোচ্চ মূল্যবৃদ্ধি হতে যাচ্ছে। সেদিনের পর বিট কয়েনের দাম বেড়েছে ১৮ দশমিক ৫ শতাংশ।

এপ্রিল মাসে বাজারে ক্রিপ্টোকারেন্সির সঞ্চালন কমে যাবে, সে কারণে বিনিয়োগকারীরা এখন বিট কয়েনে হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। সেই সঙ্গে চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ বেশ কয়েকবার নীতি সুদহার হ্রাস করবে বলে যে খবর চাউর হয়েছে, তার পরিপ্রেক্ষিতে বিনিয়োগকারীরা এখন যেসব সম্পদে বিনিয়োগ করে বেশি মুনাফা পাওয়ার সম্ভাবনা আছে, সেসব সম্পদে বিনিয়োগ করছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সিকিউরিটিস অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (এসইসি) চলতি বছরের শুরুতে ইটিএফের মাধ্যমে বিট কয়েনে বিনিয়োগের অনুমোদন দিয়েছে। এর ফলে বিনিয়োগকারীরা এখন থেকে প্রথাগত পদ্ধতিতে বিট কয়েনে বিনিয়োগ করতে পারছেন। বলা হচ্ছে, এই অনুমোদন ক্রিপ্টেকারেন্সির জগতে যুগান্তকারী ঘটনা। এর মধ্য দিয়ে বিট কয়েনে প্রথাগতভাবে বিনিয়োগ করার সুযোগ সৃষ্টি হওয়ায় মানুষও এতে বিনিয়োগ করতে উৎসাহী হচ্ছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ কয়েনবেস গ্লোবাল গতকাল বলেছে, তাদের এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে বিনিয়োগ বেড়ে গেছে। এদিকে আরেক ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ কয়েনগেকোর তথ্যানুসারে, বাজারে যত বিট কয়েন চালু আছে, তার মূল্য চলতি মাসেই প্রথম দুই ট্রিলিয়ন বা দুই লাখ কোটি ডলার ছাড়িয়েছে। সেই সঙ্গে বিট কয়েনের দাম গত চার মাসে দ্বিগুণ হয়েছে।

ইটিএফের মাধ্যমে বিট কয়েনে বিনিয়োগের অনুমোদন দেওয়ার পর অনেক প্রতিষ্ঠান এখন বিট কয়েনে বিনিয়োগ করছে। সবচেয়ে জনপ্রিয় তিনটি ইটিএফ, অর্থাৎ গ্রে স্কেল, ফিডেলিটি ও ব্ল্যাকরকের বিনিময় বেড়ে গেছে। গত সোম ও মঙ্গলবার এই ৩ ফান্ডের ১১০ মিলিয়ন বা ১১ কোটি শেয়ার হাতবদল হয়েছে।

এদিকে সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান ও ক্রিপ্টো খাতের বিনিয়োগকারী মাইক্রো স্ট্র্যাটেজি সম্প্রতি ৩ হাজার বিট কয়েনে ১৫ কোটি ৫০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছে। একই সঙ্গে সামাজিক মাধ্যম রেডিট ক্রিপ্টো জগতে প্রবেশ করেছে; বিট কয়েনের পাশাপাশি তারা ইথার কিনেছে। এদিকে বিট কয়েনের পাশাপাশি ইথারের দামও বেড়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসে ইথারের দাম ৪৭ শতাংশ বেড়ে ৩ হাজার ৩৫৩ ডলারে উঠেছে। এর ফলে তা গত দুই বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ জায়গায় পৌঁছে গেছে।

 

আরও পড়ুন: এবার রাশিয়া ছাড়ছে এলজি, সনি ও বোশ এর মতো ব্র্যান্ডগুলো

You may also like

প্রকাশক : জিয়াউল হায়দার তুহিন

সম্পাদক : হামীম কেফায়েত

গ্রেটার ঢাকা পাবলিকেশন
নিউমার্কেট সিটি কমপ্লেক্স
৪৪/১, রহিম স্কয়ার, নিউমার্কেট, ঢাকা ১২০৫

যোগাযোগ : +8801712813999

ইমেইল : news@dhakabarta.net